ছোট কাক্কুর ইলেকশন

ছোট কাক্কুর ইলেকশন
(স্মৃতিচারণ)
ডাঃ সাদেকুল ইসলাম তালুকদার

ছোট কাক্কু, মানে আমার ছোট চাচা, বাবার চাচাতো ভাই, মরহুম আব্দুস সালাম তালুকদার। তিনি কালিয়া ইউনিয়ন কাউন্সিলের সেক্রেটারির চাকরি করতেন। এজন্য সালাম সেক্রেটারি নামে পরিচিত ছিলেন । এটা একটা সরকারি চাকরি। ভালই ছিলো এই চাকরি। বাড়ী থেকেই সাইকেল নিয়ে অফিসে যেতেন। হাটের দিনে কচুয়া ও বড় চওনা হাটে ঔষধ বিক্রি করতেন। যেমন সুন্দর ছিল তার চেহারা তেমনই সুন্দর ছিল তার ব্যবহার। তিনি বেশ ধার্মিক ছিলেন। ঈদের মাঠে ছোট খাটো বয়ান দিতে শুনেছি। তবে খুব ভালো বক্তা ছিলেন না। তাকে আমি রাজনীতি করতে দেখিনি। তবে রাজনৈতিক সচেতন ছিলেন। ১৯৬৫ সনের পাকিস্তান-ভারতের যুদ্ধের সংবাদ রেডিওতে শুনে আমার বাবা চাচাদের সাথে গল্প করতে শুনেছি। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ না করলেও তিনি রেডিওতে মুক্তিযোদ্ধাদের কোন বিজয়ের কথা শুনলে চাচাদেরকে নিয়ে উল্লসিত হতেন। স্বাধীন হওয়ার পর বড় চওনা মাঠে যখন কাদের সিদ্দিকীকে গণ সম্বর্ধনা দেয়া হয় সেই সমাবেশে তাকে মোনাজাত পরিচালনা করতে দেখেছি। এলাকার কোন সালিশ বিচারে তাকে দেখিনি। চাকরি করতেন, ব্যবসা করতেন, জমি আবাদ করাতেন, সন্তানদেরকে স্কুল কলেজে পড়াতেন এবং শুখে শান্তিতেই থাকতেন গ্রামে। তিনি আমার একজন ভালো অভিভাবক ছিলেন।

Continue reading “ছোট কাক্কুর ইলেকশন”

খেজুরের রস

খেজুরের রস
আজ পৌষ মাসের ২৯ তারিখ। খুব শীত পড়েছে। ফজরের নামাজ পড়ে ময়মনসিংহ বাসা থেকে কিশোরগঞ্জ রওনা দিয়েছি। শহরে কৃষ্টপুর রাস্তায় দেখলাম এক রসওয়ালা ভার কাদে খেজুরের রস নিয়ে যাচ্ছে। মনে পড়লো খেজুরের রস নিয়ে মজার এক অভিজ্ঞতা। মোবাইলটা পকেট থেকে বের করে নোট প্যাডে গল্প লিখা শুরু করলাম। আশা করি জার্নিতেই লিখা শেষ করতে পারব। Continue reading “খেজুরের রস”

যখন প্রাইভেট কার কিনলাম

যখন প্রাইভেট কার  কিনলাম
(স্মৃতিচারণ)
ডাঃ সাদেকুল ইসলাম তালুকদার

 

গাড়ী কেনার স্বপ্ন দেখি মেডিকেলে ভর্তি হবার পর। বাসে ওঠার জন্য রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকতাম। বাসভর্তি গাদাগাদা পেসেঞ্জার নিয়ে বাস যেতো। বাসে ওঠতে না পেড়ে দাঁড়িয়েই থাকতাম। কোন কোন সময় ওঠতে পারলেও দাঁড়িয়ে যেতে হতো। অনেকসময় সিটে বসে গেলেও পাশে ঘারের উপর যাত্রী দাঁড়িয়ে যেতো। গাড়ীর দোলায় দাঁড়ানো যাত্রীরা ঘারের উপর হুমরি খেয়ে পড়তো। কিছু বললে রেগে গিয়ে বলে ফেলতো “কি অইছে? গাড়ীতে গেলে একটু আধটু ঘেষা লাগবেই। সমস্যা হলে প্রাইভেট কার কিনে নিয়েন।” ভাবতাম বড় হয়ে প্রাইভেট কারই কিনতে হবে। এখনতো বাবা প্রাইভেট কার কিনে দিতে পারবেন না। রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকার সময় পাশ দিয়ে সাঁই করে প্রাইভেট কার চলে যেতো। গ্রামের বন্ধুরা বলতো “অপেক্ষা করো, ডাক্তার হয়ে তো অনেক টাকা কামাবা। তোমাদের জন্য প্রাইভেট কার কেনা কোন ব্যাপার না।” তখন ৪-৫ লাখ টাকায় ভালো প্রাইভেট কার পাওয়া যেতো। রোগীর ভিজিট ছিল মাত্র ২০ টাকা। এই টাকা থেকে সংসার চালিয়ে বাকী টাকা জমিয়ে প্রাইভেট কার কেনা কি সম্ভব? আমি হিসাব মেলাতে পারতাম না। তাই, প্রাইভেট কার কেনার স্বপ্ন দেখেও সম্ভাবনা দেখতাম না। আমার তিন ক্লাসমেট একবার আমাকে রাস্তার ধারে দাঁড়ানো দেখে কার থামিয়ে নেমে এসে আমাকে কারে নিয়ে যেতে চাইলো। আমি জিগালাম “তোমরা কোথা থেকে কোথা যাচ্ছো?” একজন বললো “এটা ওর বাবার কার। ওকে নিয়ে মজা করার জন্য লং ড্রাইভে বেড়িয়েছি।” আমি ধন্যবাদ দিয়ে কারে যেতে অস্বীকৃতি জানালাম। ভাবলাম “আল্লাহ যদি কোনদিন সামর্থ্য দেন সেদিন কার কেনবো।” আবার চিন্তা করতাম ২০ টাকা করে ভিজিট নিয়ে কেমনে সামর্থ্য হবে আমার? Continue reading “যখন প্রাইভেট কার কিনলাম”

নবাগত এমবিবিএস ছাত্রছাত্রীদের প্রতি

নবাগত এমবিবিএস ছাত্রছাত্রীদের প্রতি
ডাঃ সাদেকুল ইসলাম তালুকদার

আজ থেকে ৩৯ বছর আগে আমি তোমাদের মতই মহান চিকিৎসা বিদ্যা শিক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে ভর্তি হয়েছিলাম। তোমরা আমার পেশা শিক্ষা করার জন্য মেডিকেল কলেজে ভর্তি হয়েছ। তোমাদের স্বাগতম জানাচ্ছি। আমি এই পেশায় আসতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করি এবং মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই। তোমরাও এই পেশায় আসতে পেরেছ বলে নিজেকে ধন্য মনে করবে এবং সৃষ্টিকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবে।
Continue reading “নবাগত এমবিবিএস ছাত্রছাত্রীদের প্রতি”

ফিজিওলজি ও প্যাথলজি

ফিজিওলজি ও প্যাথলজি
(স্বাস্থ্য কথা)
ডাঃ সাদেকুল ইসলাম তালুকদার

আমাদের জানতে ও অজানতে শরীরের ভিতরে ও বাইরে অনেক ঘটনা ঘটে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। শরীরের প্রয়োজনেই এই সব Continue reading “ফিজিওলজি ও প্যাথলজি”