তরমুজ

 

: এই, সাইকেল নিয়ে কই যাচ্ছ?
: চৌরাস্তার মোড়ে।
: কি জন্য?
: একটা তরমুজ কিনব। খুব গরম পরেছে। তরমুজ খাব।
Continue reading “তরমুজ”

ভুয়া ডাক্তার

: হ্যালো, তাহলে আমি কোন ডাক্তার দেখাব?
: আপনি একজন মেডিসিন রোগ বিশেষজ্ঞ দেখাবেন।
: তা তো বুঝলাম। কাকে দেখাব? ডাক্তারের নাম কি?
: ডাক্তারের নাম জানার দরকার নাই। তার পদবী জানারও দরকার নাই। শুধু দেখাবেন তার পোস্ট গ্রাজুয়েট ডিগ্রী Continue reading “ভুয়া ডাক্তার”

কনসোনেন্ট


(ছোট ছোট সংলাপ)
-আজ তোমাদের টিচার আমার বড় ভাই অসুস্থ। তিনি আসতে পারে নাই। আজ আমি তোমাদের ক্লাস নেব। তোমরা ক্লাস ফোরের সবাই এসেছ?
-জি স্যার।
-ধন্যবাদ। বসো সবাই।
Continue reading “কনসোনেন্ট”

রুগীর পথ্য খেয়ে ফেললেন

(ছোট ছোট সংলাপ)
-করিম, অত্র অঞ্চলের সবাই জানে যে করিম ও রহিমের মধ্যে যে বন্ধুত্ব তার আর তুলনা হয় না।
-রহিম, ঠিক কথাই বলছস। তোর অসুস্থতার কথা শুনে আমি আর ঠিক থাকতে পারলাম না। তাই আজ তোকে দেখতে এসে পরলাম।
-করিম, সারাদিন এই অসুস্থ আমাকে কত লোক এসে দেখে গেল। কিন্তু যে পর্যন্ত তুই না আসলি আমি তৃপ্তি পেলাম Continue reading “রুগীর পথ্য খেয়ে ফেললেন”

যে রোগের ঔষধ নাই

(ছোট ছোট সংলাপ)
-আমার তো কয়েকটা জটিল রোগে ধরে ফেলেছে।
-কি রকম?
-এই, খাইলে ক্ষুধা লাগে না। ঘুমাইলে চোখে দেখি না। সামনে থেকে পিছনে দেখি না।
-ফাইজলামি করবে না।
Continue reading “যে রোগের ঔষধ নাই”

আইচার মইধ্যে ছাই

(ছোট ছোট সংলাপ)
– দেইন গো, অন্ধ মানুষটারে চাইরডা ভিক্ষা দেইন গো, মা।
-বাবা, অনেকক্ষণ অইয়া গেল ভিক্ষা ত দিতাছে না। নও অই বাড়ি যাই। ইবাড়িরা কির্পণ কোনদিনও ভিক্ষা দেয় না।
-দিব, দিব। এক দিন না এক দিন এগো মন গলবো। চাইতে থাকি।
Continue reading “আইচার মইধ্যে ছাই”

ঘাউড়া রুগীর প্রেসক্রিপশন

(ছোট ছোট সংলাপ)
-বসুন। আপনার নাম কি?
-নাম জানার দরকার কি?
-প্রেসক্রিপশনে নাম না লিখলে কোনটা কার প্রেসক্রিপশন তা বুঝা যাবে না। তাই নাম লিখা প্রয়োজন।
-ঘাউড়া মিয়া।
Continue reading “ঘাউড়া রুগীর প্রেসক্রিপশন”