নির্দেশের প্রয়োজন পড়ে নি

নির্দেশের প্রয়োজন পড়ে নাই
(মনে পড়ে)
ডাঃ সাদেকুল ইসলাম তালুকদের

১৯৭৯ সনে আলাউদ্দিন সিদ্দিকী কলেজ হোষ্টেলে থাকাকালীন একটা ঘটনা মনে পড়লো। হোস্টেল ছিল টিনসেড। এখন সেখানে বিল্ডিং হয়েছে। নিচ তলায় মার্কেট। জৈষ্ঠ মাস ছিল। রাতের খাবার খেয়ে আমি ও রুমমেট আযম মামা (নুর ই আযম) রিলাক্স মুডে গল্প করছিলাম। মাঝে মাঝে মেঘের গর্জন শুনা যাচ্ছিলো। বাতাসের শো শো আওয়াজ শুনা যাচ্ছিল। হঠাৎ অন্যরকম একটা শব্দ শুনতে পেলাম বাতাসের। যেটা আগে কখনো শুনি নি। আমি গল্প রেখে বললাম “মামা, এমন আওয়াজ আমি আগে কখনো শুনিনি। ” বলার সাথে সাথে উপরের টিনের চাল নেই। আকাশ দেখা যাচ্ছে। আকাশের সেই উজ্জ্বল রঙ আমেই আগে দেখি নি। এরপরও দেখি নি।

কোন কথা নেই। দেখলাম আযম মামা বিড়ালের মতো আসতে করে খাটের নিচে গিয়ে বসলেন। আমিও আসতে করে বানরের মতো টেবিলের নিচে গিয়ে বসলাম। বাতাসের তাণ্ডব চলছিল। আমি মামার দিকে তাকাই। মামাও আমার দিকে তাকায়। মাঝে মাঝে মামা ঘার বেকিয়ে আকাশ দেখেন। আমিও চোখ তুলে আকাশের দিকে তাকাই।

একসময় সব থেমে গেল। বাইরে ছাত্রদের কথাবার্তা শুনা গেলো। আমরা বেড়িয়ে পড়লাম। দেখলাম আমাদের দুই পাশের কয়েকটি রুমের চাল নেই। আশে পাশে কোথাও চাল পড়ে থাকতে দেখলাম না। পরেরদিন দেখা গেল কলেজ থেকে অনেক দূরে নাগবাড়ি গ্রামের মাঠে অক্ষত অবস্থায় চালটি বসে আছে। পরে ওই অবস্থায়ই চাল এনে আগের জায়গায় বসানো হয়। ঘুর্নিঝড় শুধু একটা লাইনেই চলে গিয়েছিল। যেখান দিয়ে গেছে সেখানকার টিনের চালা, গাছপালা, খরের পালা সব উঠিয়ে নিয়ে অন্য জায়গায় বসিয়ে দিয়েছিল।

আমরা নুরুল ইসলামকে পাচ্ছিলাম না। নাইট গার্ড রংগু চাচা খুজে পেলেন। সেও খাটের নিচে বসেছিল। রংগু চাচা তাকে বেড়ি আসতে বললেও সে বেড়িয়ে আসেনি। আমরা তাকে আশ্বাস দিলাম যে এখন ঝড় নেই বেড়িয়ে আসো। তারপর সে বেড়িয়ে এলো। নুরু বললো “আমি মনে করেছিলাম কিয়ামত হচ্ছে। রংগু চাচাকে চিনতে পারছিলাম না। মনে করছিলাম ইনি আজরাইল। আমার জান কবজ করতে এসেছে। তাই আমি খাটের নিচ থেকে বেড় হই নি। ”

রংগু চাচার ছোংগা বোংগা দাড়ি মোছ ছিল। ভয়ের সময় নুরু একটু বেশী দেখেছিল। তাই চিনতে পারেনি।

যাহোক, সেদিন সেই বিপদের সময় কি করতে হবে কেউ কাউকে নির্দেশনা দেয় নি। আমরা আপনা আপনি যার যার বুদ্ধি খাটিয়ে বাঁঁচবার চেষ্টা করেছি। সময় এসে গেলে কেউ কারো নির্দেশের অপেক্ষায় থাকে না।
৮/৮/২০১৮ ইং

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *