আদম সন্তান



: তোমরা আজ স্কুলে যাওনি?
: আজ আমাদের স্কুল ছুটি।
: সবাই মিলে মোবাইল নিয়ে গেইম খেলছ?
: আজ পড়া নেই, তাই গেইম খেলছি।
: এসো গল্প শুনাই। সবাই মোবাইল বন্ধ করে মনোযোগী হও। কিসের গল্প শুনবে?
: ডাইনোসরের গল্প বলেন, আনকেল।
: শোন, আজ আমি তোমাদের মানব সৃষ্টির কথা বলব।
: মানব সৃষ্টি মানে?
: মানে হল, সব কিছুর তো একটা প্রথম আছে। বলতো প্রথম মানুষ কে?
: কে?
: প্রথম মানুষ হল আদম (আ:)। আল্লাহ্‌ প্রথম আদমকে তৈরি করেন মাটি থেকে। আর আদমের শরীরের অংশ থেকে তৈরি করেন তার স্ত্রী হাওয়াকে (আ:)। অর্থাৎ আদম-হাওয়া ছিলেন স্বামী-স্ত্রী। যেমন, তোমাদের আব্বা-আম্মা স্বামী-স্ত্রী। তোমরা তোমাদের বাবা-মার সন্তান। আদম ও হাওয়ার অনেক সন্তান হয়। অর্ধেক ছেলে ও অর্ধেক মেয়ে। একজন ছেলের সাথে একজন মেয়ের বিয়ে করিয়ে দেন। তাদের থেকে আবার সন্তান হয়। এইভাবে মানুষ বাড়তে থাকে। আমরা আদমেরই বংশধর।
: আংকেল, আপনি বললেন, আদমের একজন ছেলের সাথে একজন মেয়ের বিয়ে হয়। তারা তো ভাই বোন ছিল। ছি ছি, ভাই বোনের সাথে কি বিয়ে হতে পারে?
: তখন তো প্রথম প্রথম। আর তো কোন মানুষ ছিল না। তাই প্রথমবার ভাই বোনের সাথে বিয়ে দিতে হয়েছে।
: আরেকটা কথা বললেন যে, হাওয়ার অনেক সন্তান হয়েছিল। তখন তো আর কোন মানুষ ছিল না। তার মানে ডাক্তারো ছিল না। তাইলে সন্তান হতে সিজার অপারেশন কে করলো?
: সিজার ছাড়াই সন্তান হয়।
: কিভাবে হয়। পেট না কাটলে সন্তান বের হবে কিভাবে? আমরা এখানের যে পাঁচজন আছি সবাইকে তো হাসপাতালে পেট কেটে বের করা হয়েছে। হাওয়ার পেট কাটল কে?
: পেট না কেটেও বাচ্চা হয়।
: কক্ষনো না। আমরা কেউ হই নি। আর কেউ হয় নি।
: আপনার গল্প ঠিক না।
: তো তোমরা গেইমই খেল। আমি যাই।

[৯/৪/২০১৮]

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *